ধর্ষনঃ বাংলাদেশ ও ভারত পেক্ষাপটে এই সামাজিক ব্যাধির শেষ কোথায়

Posted Leave a commentPosted in মতামত

মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল গালিবঃ সম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া ধর্ষন এবং যৌন  নির্যাতনের ঘটনা সত্যি জাতির জন্য লজ্জাজনক। মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা কি এমন একটা সমাজ তথা দেশ গঠন করতে চেয়েছি! পত্রপত্রিকা, টিভি নিউজ বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সব স্থানেই খবরের শিরোনাম হচ্ছে নারী নির্যাতনের খবর। এই সকল ধর্ষণ এবং নারী নির্যাতনের ব্যাপারে কঠোর নিন্দা […]

পরকীয়াঃএকটি সামাজিক ব্যধি, এখনি সময় এটিকে নিয়ন্ত্রনের

Posted Leave a commentPosted in মতামত

মোঃ আরিফ হুসাইনঃ বর্তমানে নিউজ চ্যানেল এবং পত্রিকা খুললেই  প্রতিনিয়ত চোখে পড়ে-  মায়ের পরকীয়ায় বলি শিশু সন্তান (প্রথম আলো), শ্যালিকার সঙ্গে পরীকায় জেরে শিশু হত্যা স্ত্রীর (প্রথম আলো), পরকীয়া প্রেমিকের হাতে স্বামী খুন, ৩ মাস পর মিলল লাশ (N TV)। পরকীয়া (ইংরেজি: Adultery বা Extramarital affair বা Extramarital sex) হল বিবাহিত কোন ব্যক্তির (নারী বা পুরুষ) স্বামী বা স্ত্রী ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তির সাথে বিবাহোত্তর বা বিবাহবহির্ভূত প্রেম, যৌন সম্পর্ক ও যৌন কর্মকান্ড। Cambridge Dictionary তে বলা আছে, পরকীয়া হলো- Sex between a married man or woman and someone he or she is not married to. দিন দিন বাংলাদেশে পরকীয়া বেড়েই চলছে এবং এটিকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠছে ভিন্ন ভন্ন অপরাধ।ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি জরিপে এমন একটি চিত্র পাওয়া গেছে, স্বামীর পরকীয়ার কারণে ৮০ শতাংশ স্ত্রীরা বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করে থাকেন।অন্য একটি  গবষেণায় দেখা গেছে  পরকীয়ায় বেশি জড়াচ্ছেন মধ্যবয়সীরা এবং তাদের মধ্যে এগিয়ে নারীরা । পরকীয়ার জন্য কি স্বামী না স্ত্রী দায়ী? এ ব্যাপারে নারী বা পুরুষ- কে দায়ী তা বলা মুসকিল৷ একজন পার্টনার পরকীয়ায় জড়িয়ে গেলে, অন্যজন তার প্রতি প্রতিশোধ নেয়ার জন্যও অনেক সময় নিজেকে অন্য আরেকজনের সঙ্গে জড়িয়ে ফেলেন। তবে পরকীয়ার জন্য সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাদের সন্তান। কেন পরকীয়া দিন দিন বেড়েই চলছে? পরকীয়ার প্রথম কারন হলো-  স্বামী অথবা স্ত্রী একে অপরকে পর্যাপ্ত সময় না দেওয়ার কারনে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে একটা মানসিক দূরত্ব সৃষ্টি হয়। স্বামী অথবা স্ত্রী এমন কাউকে খুজতে থাকে যার সাথে তার একাকীত্ব ঘুচে যায়। এমন কাউকে খুজতে থাকা থেকেই পরকীয়ার সূত্রপাত হয়। ছেলে ও মেয়েরা কিন্তু একই কারণে পরকীয়ায় জড়ায় না। মেয়েরা মূলত পুরুষের বুদ্ধিবৃত্তিক, আবেগীয় ও অর্থ সম্পদের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে এবং শারীরিক চাহিদা থেকে পরকীয়ায় জড়ায়। অন্যদিকে পুরুষরা সাধারণত বহুগামী মানসিকতা থেকে পরকীয়ায় জড়িয়ে থাকে। অফিস সহকর্মী কিংবা বন্ধুবান্ধবদের পরকীয়ার গল্প শুনতে শুনতেই অনেকে নিজের জীবনেও সেই উত্তেজনা খুঁজতে গিয়ে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। আমেরিকার নিউ ওমেন ম্যাগাজিনের জরিপে জানা যায় চাকরিজীবী বিবাহিত নারীরা তাদের কর্মস্থলেই ‘লাভার’দেরসঙ্গে দেখা সাক্ষাত করে থাকেন। শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরিপে জানা যায় যে, ২৫ শতাংশ পুরুষ পরকীয়া করছে এবং ১৭ শতাংশ নারী তাদের স্বামীদের প্রতি বিশ্বস্ত নয় জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের চাইল্ড অ্যাডোলসেন্ট ও ফ্যামিলি সাইকিয়াট্রি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, অনেক সময় মানসিক সমস্যার কারণেও মানুষ পরকীয়ায় জড়াতে পারে।যাদের মধ্যে বাইপোলার মুড ডিজঅর্ডার আছে, তাঁদের পরকীয়ার সম্পর্কে জড়ানোর প্রণতা দেখা যায়। তাঁরা কোনো কিছুর মধ্যে স্থিরতা খুঁজে পায় না।  সঙ্গীর উদাসীনতা ও দূরত্বের কারণেও অনেক সময় মানুষ পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে জানিয়ে তিনি বলেন, অনেক সময় স্বামী-স্ত্রী বাস্তবতার কারণে, কাজের কারণে হয়তো দূরে চলে যায়। তখন তাঁদের মধ্যে পরকীয়ার আগ্রহ বাড়ে।  অনেক সময় পশ্চিমা সংস্কৃতির ধাঁচ নিজেদের মধ্যে আনতে চায়, তখন পরকীয়া বাড়ে। এ ছাড়া স্বামী-স্ত্রীর দ্বন্দ্ব, দূরত্ব ইত্যাদির জন্যও অন্যের প্রতি আগ্রহ, আসক্তির ঘটনা ঘটে।  পরকীয়া দিন দিন বেড়ে যাওয়ার অন্য একটি কারণ পরকীয়া অপরাধের স্ট্রিক কোন আইন না থাকা। শুধুমাত্র দণ্ডবিধির ৪৯৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী এই  অপরাধের শাস্তি সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের ব্যবস্থা রয়েছে  এবং তা শুধুমাত্র  পুরুষ এর জন্য নারীর জন্য নয়। বর্তমানে মানুষের ধর্মীয় মূল্যবোধ কমে যাওয়াও পরকীয়া বেড়ে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ । কেননা পৃথিবীর প্রায় সকল ধর্ম পরকীয়া কে অন্যায় ও অপরাধ মনে করে। পরিশেষে এতটুকু বলতে চাই, স্বামী ও স্ত্রীর পরস্পরের পরিপূর্ণ অধিকার আদায়, সামাজিক ও ধর্মীয় মুল্যবোধ, বিবাহে বয়ষের অতিরিক্ত তারতম্য দূরিকরণ এবং স্ট্রিক আইনের মাধ্যমেই পরকীয়া ব্যধি সমাজ থেকে হ্রাস করা সম্ভব। লেখকঃশিক্ষার্থী,আইন বিভাগ ,উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়।    

বাংলাদেশে পতিতাবৃত্তি বৈধ, না অবৈধ?

Posted Leave a commentPosted in মতামত

এ্যাডভোকেট সিরাজ প্রামাণিকঃ শ্রাবন্তী (ছদ্মনাম) একজন পতিতা, সৎ মায়ের ঘরে বেড়ে ওঠা তার। সংসারে উপার্জনেরকোনো লোক নেই। তাই সুন্দর, স্বাভাবিক জীবন থেকে ছিটকে পড়ে নাম লেখানপতিতাদের তালিকায়। কখনো কখনো রাস্তায়, রেললাইনের পাশে কখনো সমাজের বিভিন্নস্তরের মানুষের বাসায় কিংবা হোটেলে রাত যাপন করতে হয় নতুন নতুন খদ্দেরের সঙ্গে। আরএর সাথে যুক্ত থাকে কয়েকজন দালাল চক্র। কোনো […]

ভোক্তা অধিকার সম্পর্কে জেনে নিই,সচেতন হই।

Posted Leave a commentPosted in মতামত

মোঃ ইব্রাহীম খলিলুল্লাহ মেহেদীঃ ১৫ মার্চ  আন্তর্জাতিক ভোক্তা অধিকার দিবস। কোনো দোকানে গেলে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি মূল্যে পণ্য বা সেবা বিক্রয় করা ভোক্তা অধিকার-বিরোধী কাজ। শুধু এটিই নয়, খাবার পানীয় বা অন্য কোনো খাবারে বিষাক্ত বা রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করা নিষেধ। মিথ্যা বা চাতুর্যপূর্ণ বিজ্ঞাপন দিয়ে ক্রেতাকে নিম্নমানের পণ্য কিনতে উদ্বুদ্ধ করা, দাম অনুযায়ী […]

তালাকের পর কিভাবে তালাক প্রত্যাহার করবেন

Posted Leave a commentPosted in মতামত

এ্যাডভোকেট সিরাজ প্রামানিকঃ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যেকোনো কারণেই তালাক হতেই পারে কিংবা দুজনে পৃথকও বসবাস করতে পারে। কিন্তু স্বামী-স্ত্রী যদি চান তাঁরা পুনরায় সংসার করবেন, তাহলে আইনে কোন বাঁধা নেই। তবে কিছু আইন মেনে আবার ভাঙা সংসার জোড়া লাগাতে হয়। এবার জেনে নেয়া যাক এ বিষয়ে আইন কি বলে। ১৯৬১ সালের মুসলিম পারিবারিক আইনে বলা হয়েছে […]

সাইবার ক্রাইম এবং কিছু কথা

Posted Leave a commentPosted in মতামত

মতিউর রহমানঃ ইন্টারনেট (FB, Email, messenger, twitter, website etc) এবং টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক (sms, mms, phone call etc) এর মাধ্যমে কোন অপরাধ সংঘটনকে বলা হয় সাইবার ক্রাইম। Juniper Research এর এক জরিপে জানা ২০১৯ সালে সাইবার ক্রাইমের ফলে বিশ্বব্যাপী সম্ভাব্য ক্ষতির মাত্রা ২.১ ট্রিলিয়ন ডলার। সচরাচর বেশি ঘটে যেসব সাইবার ক্রাইমঃ স্প্যামিং- লটারি জিতে কয়েক লক্ষ […]

মামলা থাকলে কি সরকারী চাকুরী পেতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়?

Posted Leave a commentPosted in মতামত

আব্দুল্লাহ আল মামুনঃ বর্তমানে, সরকারী, আধা-সরকারী সহ বিভিন্ন ব্যাংকের চাকুরিতে চূড়ান্ত নিয়োগের পূর্বে শক্ত-পোক্ত পুলিশ ভেরিফিকেশন করা হয়। কোন কোন সরকারী চাকুরীতে ৩ স্তর বিশিষ্ট ভেরিফিকেশন করা হয় পুলিশ, এসবি এবং এনএসআই এর স্বমন্বয়ে। দূর্ভাগ্য বশতঃ আপনি যদি কোন ফৌজদারী মামলায় অভিযুক্ত হয়ে থাকেন সে ক্ষেত্রে হাতে পেয়েও হাত ছাড়া হতে পারে চাকুরী নামের সোনার […]

ওষুধেও পাওয়া যাচ্ছে মাদকঃ নিরাপত্তা কোথায়?

Posted Leave a commentPosted in মতামত

এ্যাডভোকেট সিরাজ প্রামাণিকঃ ওষুধ হলো এমন রাসায়নিক দ্রব্য যা প্রয়োগে প্রাণিদেহের রোগ প্রতিকার হয়। কিন্তু সেই ওষুধ যখন প্রাণীদেহে ক্যান্সারের মতো মরণ ব্যাধি সৃষ্টি করে, তখন নিরাপত্তা কোথায়? সম্প্রতি জীবন রক্ষাকারী ওষুধ টাপেন্টাডলকে মাদকদ্রব্য হিসেবে ঘোষণা করেছে সরকার। গত ৮ জুলাই এ সংক্রান্ত একটি গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার। ব্যথার ওষুধের উপাদান ‘টাপেন্টাডল’ মাদকদ্রব্য হিসেবে ঘোষণা […]

বিচারক ও আইনজীবীঃ তুলনামূলক আলোচনা-পর্ব ০১

Posted Leave a commentPosted in মতামত

এ্যাডভোকেট সিরাজ প্রামাণিকঃ মানবদেহের রোগ মুক্তির দায়ভার যেমন একজন ডাক্তারের উপর অর্পিত থাকে, ইঞ্জিনিয়ার তার ইটের গাঁথুনিতে অবকাঠামোর ভিত গড়ে, ঠিক তেমনি দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালনে বিচারাঙ্গণ বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে।  বিখ্যাত দার্শনিক ‘রোজার ডাটেন্স’ বলেছিলেন “বাঁচ এবং বাঁচতে দাও এই হলো সাধারণ বিচারের কথা।” বিচার হলো মূলত বিবাদমান দলের মধ্যকার বিরোধের বিষয়ের উপর […]

মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ্ আল গালিব।

অদৃশ্য খোঁড়া যুক্তি এবং শিক্ষানবিশদের সনদ

Posted Leave a commentPosted in মতামত, সম্পাদকীয়

মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ্ আল গালিবঃ শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের আন্দোলন, পরীক্ষা, সনদ প্রদান বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিস্তর আলোচনা, সমালোচনা হয়েছে। এর পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি এবং মতামত আমরা দেখেছি। তবে সব কিছুতেই একটা বিষয়ে সবাই এক অবস্থানে দাঁড়াতে পেরেছে আর তা হল বার কাউন্সিলের সঠিক নিয়ম অনুসরন করে নিয়মিত পরীক্ষা গ্রহণের ব্যর্থতার বিষয়টি। আমরা দেখেছি বার কাউন্সিলের একজন নির্বাচিত […]